Job Preparation

মহাকাশ ও মহাবিশ্ব (GK)

মহাকাশ ও মহাবিশ্ব: মহাকাশের চন্দ্র, সূর্য ,গ্রহ ,নক্ষত্র ,ধুমকেতু ,উল্কা, নিহারিকা ,পলিসার ,কৃষ্ণ বামন ,কৃষ্ণগহ্বর ,প্রভৃতি সবকিছু নিয়ে গঠিত হয়েছে এই মহাবিশ্ব।

মহাকাশ ও মহাবিশ্ব (GK)

মহাকাশ ও মহাবিশ্ব (GK)
মহাকাশ ও মহাবিশ্ব (GK)


সকল চাকরির পরীক্ষাতেই মহাকাশ ও মহাবিশ্ব টপিক থেকে প্রশ্ন করা হয় ।

নক্ষত্র

১। যেসব জ্যোতিষ্কের নিজস্ব আলো আছে তাদের বলে—নক্ষত্র
২। নক্ষত্র—জ্বলন্ত গ্যাসপিন্ড
৩। নক্ষত্র— হাইড্রোজেন ও হিলিয়াম গ্যাস দিয়ে তৈরি
৪। পৃথিবীর নিকটতম নক্ষত্র— সূর্য
৫। সূর্যের নিকটতম নক্ষত্র— প্রক্সিমা সেন্টরাই
৬। মেঘমুক্ত অন্ধকার রাতে আকাশে কয়েকটি নক্ষত্র বিশেষ আকৃতিতে মিলে জোট বাধা কে বলে—নক্ষত্রমন্ডলী

আলোকবর্ষ

১। আলো প্রতি সেকেন্ডে কত কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে— তিন লক্ষ কিলোমিটার
২। সূর্য থেকে পৃথিবীতে আলো আসতে সময় লাগে— ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড বা ৮.৩২ সেকেন্ড।
৩। প্রক্সিমা সেন্টারাই থেকে পৃথিবীর দূরত্ব—৪.২ আলোকবর্ষ।

গ্যালাক্সি

১। মহাকাশে গ্রহ, নক্ষত্র, ধূলিকণা, ধূমকেতু বাষ্পকুণ্ডের এক বিশাল সমাবেশ কে বলে— নক্ষত্র জগৎ বা গ্যালাক্সি
২। মহাকাশে গ্যালাক্সির সংখ্যা—১০০ বিলিয়ন
৩। বেশিরভাগ গ্যালাক্সি ই—সর্পিলাকার ও উপবৃত্তাকার (বৃহৎ আকৃতির)

নীহারিকা

১। মহাকাশে অসংখ্য স্বল্প আলোকিত তারকার আস্তরণ হলো— নীহারিকা
২। নীহারিকার দেহ— গ্যাসীয় পদার্থের পরিপূর্ণ
৩। তারকার আস্তরণ —নীহারিকা

ছায়াপথ

১। কোন একটি গ্যালাক্সির ক্ষুদ্র অংশকে বলে— ছায়াপথ
২। অন্ধকার আকাশে এদের দেখা যায়— উজ্জ্বল দীপ্তি দীর্ঘ পথের মত
৩। আকাশগঙ্গার অপর নাম—ছায়াপথ

উল্কা

১। রাতের মেঘমুক্ত আকাশে অনেক সময় মনে হয় যেন নক্ষত্র ছুটে যাচ্ছে বা কোন নক্ষত্র যেন এইমাত্র খসে পড়ল। এরা আসলে কোন নক্ষত্র নয়, এদের নাম হলো— উল্কা
২। মহাশূন্যে ভেসে বেড়ায় — অজস্র জরপিন্ডু

ধুমকেতু

১। মহাকাশে মাঝে মাঝে এক প্রকার জ্যোতিষ্কের আবির্ভাব ঘটে। যার একটি মাথা ও লেজ আছে। এসব জ্যোতিষ্ককেই বলে —ধূমকেতু
২। আকাশের এক অতি বিস্ময়কর জ্যোতিষ্ক—ধুমকেতু
৩। হ্যালির ধূমকেতু আবিষ্কার করেন— জ্যোতি বিজ্ঞানী এডমন্ড

হেলি

৪। হ্যালির ধুমকেতু দেখা যায়—২৪০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ থেকে
৫। হ্যালির ধূমকেতু দেখা যায়— প্রতি ৭৬ বছরে একবার
৬। সর্বশেষ হ্যালির ধূমকেতু দেখা গেছে—১৯৮৬ সালে
৭। আবারো এই হ্যালির ধূমকেতু দেখা যাবে—২০৬২ সালে

গ্রহ

১। মহাকাশে কতগুলো জ্যোতিষ্ক সূর্যকে নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট পথে পরিক্রমণ করে, এদেরকেই বলে— গ্রহ
২। নিজস্ব কোন আলোকতাপ নেই—- গ্রহের
৩। গ্রহ সমূহ সূর্যকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয় কোন বলের প্রভাবে—মহাকর্ষ বল
৪। সৌরজগতের মোট গ্রহ —-৮টি
৫। সৌরজগতের স্বীকৃত গ্রহ কতটি—৮ টি

সৌরজগৎ

১। সূর্য এবং তার গ্রহ, উপগ্রহ ,গ্রহাণুপুঞ্জ ,অসংখ্য ধূমকেতু ও অগণিত উল্কা নিয়ে গঠিত হয়— সৌরজগৎ
২। সূর্যের অবস্থান—সৌরজগতের কেন্দ্রে
৩। সূর্য একটি কি—নক্ষত্র
৪। সূর্যের আকার কেমন—মাঝারি
৫। সূর্যের বর্ণ কেমন—হলুদ
৬। সূর্যের ব্যাস কেমন— প্রায় ১৩ লক্ষ ৮৪ হাজার কিলোমিটার
৭। সূর্যকে কেন্দ্র করে ঘুরছে— আটটি গ্রহ
৮। সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ— বৃহস্পতি
৯। সৌরজগতের সবচেয়ে ছোট গ্রহ —বুধ
১০। সৌরজগতের সবচেয়ে কম উজ্জ্বল গ্রহ, যাদেরকে দুরবিক্ষণ যন্ত্র ছাড়া খালি চোখে দেখা যায় না—ইউরেনাস ও নেপচুন
১১। সূর্য পৃথিবীর চেয়ে কত গুন বড়—১৩ লক্ষ গুণ

সৌরজগতের আটটি গ্রহ সম্পর্কে বিস্তারিত

বুধ

১। সৌরজগতের ক্ষুদ্রতম গ্রহ— বুধ
২। সূর্যের নিকটতম গ্রহ— বুধ
৩। বুধ গ্রহের ব্যাস — ৪৮৫০ কিলোমিটার
৪। সূর্য থেকে দূরত্ব—5.8 কোটি কিলোমিটার
৫। বুধ গ্রহের উপগ্রহ—নেই
৬। বুধ গ্রহ সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে সময় লাগে— ৮৮ দিন

শুক্র

১। সৌরজগতের সবচেয়ে উজ্জ্বল ও উত্তপ্ত গ্রহ হচ্ছে— শুক্র
২। এসিড বৃষ্টি হয় কোন গ্রহে—শুক্র
৩। শুকতারা ও সন্ধ্যা তারা দেখা যায় কোন গ্রহে—শুক্র
৪। একমাত্র কোন গ্রহ নিজ অক্ষের উপর পূর্ব থেকে পশ্চিমে ঘুরে—-সূর্য
৫। শুক্রের ব্যাস —- ১২১০৪ কিলোমিটার
৬। সূর্য থেকে শুক্রের দূরত্ব—১০.৮ কোটি কিলোমিটার
৭। শুক্রের কোন উপগ্রহ নেই
৮। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে কতদিন সময় লাগে—২২৫ দিন

পৃথিবী

১। শুক্রের নিকটতম গ্রহ—পৃথিবী

২। একমাত্র প্রাণের অস্তিত্ব আছে— পৃথিবীতে

৩। সূর্য থেকে দূরত্ব অনুসারে তৃতীয় গ্রহ—পৃথিবী
৪। পৃথিবীর ব্যাস— ১২৬৬৭ কিলোমিটার
৫। সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব—১৫ কোটি কিলোমিটার
৬। পৃথিবীর একটি মাত্র উপগ্রহ—চাঁদ
৭। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে সময় লাগে—৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড
৮। সূর্য পৃথিবীর চেয়ে কত লক্ষ গুন বড়—১৩ লক্ষ

মঙ্গল

১। পৃথিবীর নিকটতম প্রতিবেশী বলা হয় কাকে—মঙ্গল
২। মঙ্গল গ্রহের রং—- লালচে
৩। দিন রাত্রের পরিমাণ পৃথিবীর প্রায় সমান কোন গ্রহের—মঙ্গল
৪। অক্সিজেন ও পানির পরিমাণ খুবই কম এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইডের পরিমাণ বেশি কোন গ্রহের—-মঙ্গল গ্রহ
৫। মঙ্গল গ্রহের ব্যাস—৬৭৮৭ কিলোমিটার
৬। সূর্য থেকে মঙ্গল গ্রহের দূরত্ব—২২.৮ কোটি কিলোমিটার
৭। মঙ্গল গ্রহের দুটি উপগ্রহ—ফোবস ও ডিমোস
৮। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে মঙ্গল গ্রহের সময় লাগে—৬৮৭ দিন

বৃহস্পতি

১। সৌরজগতের সবচেয়ে বড় গ্রহ কোনটি—বৃহস্পতি
২। গ্রহরাজ বলা হয় কাকে—বৃহস্পতিকে
৩। বৃহস্পতিতে কোন গ্যাস থাকে—- হাইড্রোজেন ও হিলিয়াম
৪। আয়তনে পৃথিবীর চেয়ে বৃহস্পতি বড়— ১৩০০ গুন
৫। পৃথিবীর প্রায় 27 ভাগের এক ভাগ তাপ রয়েছে— বৃহস্পতি গ্রহে
৬। জীবের অস্তিত্ব নেই— বৃহস্পতি গ্রহে
৭। বৃহস্পতি গ্রহের ব্যাস—-  ১৩৯৮২২ কিলোমিটার
৮। সূর্য থেকে বৃহস্পতি গ্রহের দূরত্ব— ৭৭.৮ কোটি কিলোমিটার
৯। বৃহস্পতি গ্রহের উপগ্রহ সংখ্যা— ৭৯টি
১০। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে সময় লাগে— ৪৩৩১ দিন

শনি

১। ভূ-ত্বক বরফে ঢাকা—- শনি গ্রহের
২। সৌরজগতের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহ—-শনি গ্রহ
৩। শনি গ্রহের বেশ— ১১৬৪৬৪ কিলোমিটার
৪। সূর্য থেকে শনি গ্রহের দূরত্ব— ১৪৩ কোটি কিলোমিটার
৫। শনি গ্রহের উপগ্রহ—- ৮২ টি

ইউরেনাস

১। সৌরজগতের তৃতীয় বৃহত্তম গ্রহ—ইউরেনাস

২। ইউরেনাসে কোন গ্যাস থাকে —মিথেন
৩। ইউরেনাসের ব্যাস— ৪৯০০০ কিলোমিটার
৪। সূর্য থেকে ইউরেনাসের দূরত্ব—২৮৭ কোটি কিলোমিটার
৫। ইউরেনাসের উপগ্রহ সংখ্যা—২৭ টি
৬। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে ইউরেনাসের সময় লাগে—৮৪ বছর

নেপচুন

১। শীতল গ্রহ— নেপচুন
২। আয়তনে ৭২ টি পৃথিবীর সমান—নেপচুন
৩। ভরের দিক দিয়ে ১৭ টি পৃথিবীর ভরের সমান—নেপচুন
৪। নেপচনে কোন গ্যাস থাকে—মিথেন ও এমোনিয়া
৫। নেপচুন গ্রহের ব্যাস— ৪৮৪০০ কিলোমিটার
৬। সূর্য থেকে নেপচুনের দূরত্ব— ৪৫০ কোটি কিলোমিটার
৭। নেপচুনের উপগ্রহ কতটি—১৪ টি
৮। সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে নেপচুনের সময় লাগে—১৬৫ বছর

বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান জানুন

বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য আমাদের এই সাইটটি তৈরি। বেশি বেশি পড়াশোনা করুন দেখবেন সাফল্য নিশ্চিত। পড়াশোনার কোন বিকল্প নেই। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button